এক চিমটি ক্র্যাক/চোরাই সফটওয়্যারের পণ্ডিতি, দুই মুঠো গুগল আর চার চামচ কপিপেস্ট – সংক্ষেপে টেকটিউনসের মূল বৈশিষ্ট্য এটিই (চলুন জেনে নিই টেকটিউনসের আসল পরিচয়)

সম্মানিত ঢেকটিউনসবাসীরা। আপনারা এতদিন শুধু বিনুদুনমূলক পোস্ট পড়ে মজা নিয়েছেন। তবে বিনুদুনের পাশাপাশি মাঝে মাঝে সিরিয়াস হওয়া স্বাস্থ্যের জন্য উপকারী। আপনারা সবাই হয়ত জানেন না ঢেকটিউনস এর সম্মানিত সদস্যবৃন্দরা টেকটিউনস মড সোর্ডফিশ দ্বারা আক্রান্ত হয়েছেন তাও বিনা কারণেই। সে টেকটিউনসে স্বৈরাচারী মনোভাব নিয়ে চলছে, তাকে নিয়ে যে শুধু আমরাই মাতামাতি করছি তাই নয়। বেশ কিছু বাংলা ব্লগে এটা নিয়ে মাতামাতি চলছে। আমাদের কাছে একটা দুইটা না, প্রায় মোটমাট শখানেক প্রমাণ আছে যেখানে আপনারা দেখতে পাবেন মডারেটর সোর্সফিশ ও তার এডমিন কীভাবে একনায়কতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করেছে। যেকোন যুক্তিসঙ্গত কমেন্ট মোছার পাশাপাশি তারা একাউন্ট ব্যান করতেও পিছপা হচ্ছে না।
শুধু ঢেকটিউনস সদস্যই নয় বরং তারা নন-ঢেকিদেরও একই ভাবে ট্রিট করছে। স্বেচ্ছাচারিতার এক চরম পর্যায়ে পৌঁছে গেছে তারা। আপনাদের কাছে গুটি কয়েক প্রমাণ নিয়ে আমরা এসেছি। যদি রেসপন্স ভাল পাই, সবার মাঝে আমরা স্বৈরশাসনের প্রমাণ তুলে দিব। আপাতত চলুন দেখি আমি ঢেকটিউনস এডমিন ত্যালা বান্দর আপ্নাদের ভুল তথ্য দিচ্ছি কিনা!

১ম দৃশ্য:

সব কমেন্ট স্প্যামের আওতাভুক্ত তা ব্লগে সরাসরি প্রকাশ পায় না। একটু অন্যভাবে দেখে নিতে হয়।

কমেন্টে দেখা যাচ্ছে Blackstone বলেছেন সে টেকটিউনসে ১ বছর আগে জয়েন করেছেন। কিন্তু সাহস করে একটি পোস্ট করে গালি খেয়েছেন আর তাই তিনি বলছেন যে ব্লগে গালাগালি বন্ধ করা উচিৎ। আপনারা দেখুন তো এখানে কোন খারাপ কথা বলেছেন উনি? নাকি স্প্যামিং করেছেন? উল্টে টেকটিউনসের গুণগান গেয়েছেন!! উনার কমেন্ট তো ঠিকি স্প্যামে চলে গেল! তাজ্জব বিষয় না?

স্পষ্টভাষী ব্যক্তিটি আমাদের ঢেকটিউনসের লিঙ্ক শেয়ার করেছেন এবং বলেছেন সমস্যা ব্যক্তিকেন্দ্রিক। সাইট কেন্দ্রিক নয়। সমস্যা যেটাই হোক, মডারেটর অন্তঃত সাইটের লিঙ্কটি মুছে দিতে পারত? কিন্তু না করে কমেন্টটি স্প্যামে পাঠান! এতে আমরা কী বুঝি? উনার গায়ে লেগেছে 😀

তৃতীয় ক্ষেত্রে আমরা দেখছি বিপাশা নামের একজন লিখেছেন Thanks for nice tune! এই কমেন্টটা তিনি কয়েকটি টিউনে দিয়েছেন! এখানে তিনি কোন লিঙ্কও শেয়ার করেন নি! তাহলে তার কমেন্টটি মোছা হল কেন? একই কথা বলার কারণে? আপনারাই বলুন তো, একই কথা কী আপনার বাসায় কখনো বলেন না? নাকি এতটাই সৃজনশীল যে আপনি বিভিন্ন পরিস্থিতিতে একটার সাথে মেলেনা এমন কথা বলতে পারেন? অবশ্যই নয়?! তাহলে এটা মোছা হল কেন? কেন এর উত্তর পানির মত সহজ! ক্ষমতার দাপট! আমার ক্ষমতা আছে আমি মুছব, তুমি বলার কে হে রামছাগু?– এটাই তাদের নীতি!

[ছবি ভাল না দেখলে ছবির উপর ক্লিক করুন, নতুন ট্যাব ওপেন হলে ইমেজটি জুম করুন, সবকয়টা ছবি হাই রেজোলিউশনে আছে]

২য় দৃশ্য:

এইবার দেখুন একজন টিউনার তার টিউনের কমেন্টের রিপ্লাই দিচ্ছেন! সেটাও গায়েব!! এর কারণ আমিও বলতে পারছি না 😐

CA স্পষ্টভাষীকে (স্পষ্টভাষী নন-ঢেকি অর্থাৎ ঢেকটিউনসের সাথে উনি জড়িত নন) বলেছেন রমজানের মাসে সব ভুলে গিয়ে কোলাকুলি করার কথা। সেটা মুছে দেওয়া হল। অর্থাৎ মডারেটর চাননা টেকটিউনসের সাথে যেকোন বিরোধের মিটমাট হোক। তিনি কমেন্টটি মুছে আরও উস্কিয়ে দিলেন ব্যাপারটাকে!!

মুক্ত বিহঙ্গ ভাই টেকটুইটসের ব্লগার। উনি তার নিজের টিউনে কাউকে হেল্প করার জন্য কমেন্ট দিয়েছেন কিন্তু সেটা দেখা যাচ্ছে না। এর কারণও আমার জানা নাই, মডারেটর এ কাজ টা কেন করল? টিউনার কী তার টিউমেন্টে কোন স্প্যামিং করেছেন? আজেবাজে কথা বলেছেন?? নাতো! তাহলে কেন কমেন্টটি মোছা হল? আসলে মডারেটর সোর্সফিশের পাওয়ার ধারণ ক্ষমতার চেয়ে বেশি হওয়ায় অতিরিক্তটুকু নির্দোষ ব্যক্তির উপরে খাটাচ্ছেন!!

আবারও মুক্ত বিহঙ্গের ব্যাপারটা দেখি, আপনারা হয়ত অনেকে জানেন আবার অনেকে জানেন না কমেন্ট দিলে সেটা সরাসরি টিউনারের রেজিস্টার্ডকৃত মেইল আইডিতে চলে যায়। মুক্ত বিহঙ্গ ভাই দেখেছেন তার মেইল আইডিতে অনেক কমেন্ট এসেছে, সেটার জবাব দিতে গিয়ে টিউনে ঢুকে দেখেন কমেন্টই নাই। তাই তিনি টেকটিউনসকে উদ্দেশ্য করে বলেছেন আমার টিউনে করা সব কমেন্ট মুছে দেওয়া হল কেন? কিন্তু উনি বড় বেশি দুর্ভাগা কারণ উনার এ কমেন্টটিও কারণ ছাড়াই কিংবা সহ স্প্যাম এ চলে যায়! আপনারাই বলেন স্প্যাম কমেন্ট কত্তগুলাই হবে যে মড সব মুছবে? আর অকারণে কমেন্ট মোছার ব্যাপারটা আপনাদের আগেই প্রমাণসহ দেখিয়েছি! এতে কী বোঝা যায় না মডারেশন পাওয়ারের অপব্যবহার করছেন টেকটিউনসের মডারেটর সোর্সফিশ!!

এবারের অংশটুকু স্রেফ বিনুদুন,দেখুন মঘাচীপুদ্দৌলা ওরফে মঘা আসিফ বিপাশার কমেন্টে কীভাবে লুল ফালাচ্ছেন। অনেকদিন লুল আটকে রেখেছেন, ফালানো ছাড়া আর কীই বা করবেন??

এবারও মুক্তভাই, দেখুন উনি কাউকে সাহায্য করার কথা বলছেন কিন্তু আফসোস, সেটাও ডিলেটেড!!

কপি পেস্টের কথা বললেও দোষ! রাতুল ভাই বলছেন তার সামু ব্লগ থেকে টিউনটি কপি করা হয়েছে কিন্তু সেটাও মুছে দেওয়া হল! 😦

হুমায়ূন স্যারের বিপক্ষে কারিফ আহমেদ নামক এক চুশীলীয় রামছাগল অনেক হাবিজাবি কমেন্ট দেয় ও আমাদের উপন্যাসের সংজ্ঞা সম্পর্কে ধারণা দেয়, তার বিরুদ্ধে কথা বললেও দোষের! কেন রে বাপ, মুছে দিবি কারিফেরটা মোছ, অচেনা বালক ভাইয়ের টা কেন? শুভ্র বাল্কেশের পোস্টের সবার কমেন্ট মুছলেও তাইলে ঔ ত্যালাউর রহমানেরটাও মুছতি! তা করলি কই? এতে বুঝা যায় না মডারেশন পুরাটাই পক্ষপাতদুষ্ট??!?

৩য় দৃশ্য:

আসুন এবার ৩য় দৃশ্য দেখি 🙂 । এটা হল ত্যালা বান্দরের কথামালা। আপনারা শুভ্র বাল্কেশের ঔ টিউনের সাথে আমার কথা গুলো মিলিয়ে দেখুন। কয়েকটা কমেন্ট হয়ত ফাইজলামি তাই বলে কী সবই যুক্তিহীন? ভিত্তিহীন??

৪র্থ দৃশ্য:

ত্যালা বান্দরের কথামালার ২য় পর্ব এটি। আমার কমেন্ট দেখুন, সবই কী যুক্তিহীন? আস্তাকুঁড়ে ফেলে দেওয়ার মত?

৫ম দৃশ্য:

এবার কয়েকটি বিনুদুনের দৃশ্য! দেখুন মডারেটর সোর্সপিশ থাকতে বানান ভুল করে আর আমি কমেন্ট দেওয়াতে সেটা মুছে দিয়ে আবার বানান ঠিক করে!!! বানান যে ঠিক করে এবং আমার কমেন্টটি যে মুছে দেয় তার প্রমাণ পরের দৃশ্যে দেখাব! 🙂

৬ষ্ঠ দৃশ্য:

মঘাচীপ দেখেন মডারেটর দের কাছে কী আকুল আবেদন জানায় যে আইসক্রিম নামের এক ভদ্দরনোক তাকে ডিসটাব করেছে! আব্বে হালার মঘা! তুই আসলেই একটা মঘা, ডিসটার্বও ঠিকমত লিখতে পারিস না। আর দেখুন ডেস্ক বানান ঠিক এবং আমার কমেন্ট গায়েব!

৭ম এবং শেষ কিন্তু অতি গুরুত্বপূর্ণ দৃশ্য:

একে পার্চোনাল ত্যাল মারা দৃশ্য বললেও কম ভুল হবে না। ওমর ফারুক নামের এক ছাগল দেখুন টেকটিউনসের এডমিনকে কীভাবে তৈল প্রদান করছে?! বাপ্রে, উনি টেকটিউনস ভ্লগ পড়ে এমন কী আব্ল ব্যক্তি হয়েচেন যে উনাকে এক ডাকে সবাই চিনে?? 😛 , পিছনে যে ধ্বজভঙ্গের ছবি দেকচেন ঔঠাই টিটির এডমিন 😀

ডাউনলোড করে নিন স্ক্রিনশটগুলু হাই রেজুলিউশনে:

এই পোস্টে ব্যবহৃত সবকয়টি ইমেজ হাই রেজুলিউশনে রেখে আপলোড করা হল জিপ ফাইলে। ফ্রবাসী থেকে একটু তাড়াতাড়িই পেয়ে গেলাম। ডাউনলোড বাটনে ক্লিক করুন নতুন ট্যাব আসলে Download File এ ক্লিক করুন এরপর Download এর ছোট বাটনে ক্লিক করলেই শুরু হবে ডাউনলোড। ফাইলটির সাইজ মাত্র ৮ মেগাবাইট।

ঢেকটিউনস এখন সোশ্যাল কমিউনিটি সাইটে:

যারা সহায়তা করেছেন:

  • ত্যালা বান্দর
  • ত্যালা বান্দর রাইজেস
  • ত্যালা বান্দর রিটার্ন্স
  • ফিফার কমেন্ট থেকে টাইটেল চয়ন করা হয়েছে
  • জাম্বোফাইল (ফাইল হোস্টিং)

স্পন্সরশিপ:

  • লিকবিডি.কম (lickbd.com)
  • ফ্রবাসী
  • ব্লগ.দেউলিয়া.কম

Advertisements

22 thoughts on “এক চিমটি ক্র্যাক/চোরাই সফটওয়্যারের পণ্ডিতি, দুই মুঠো গুগল আর চার চামচ কপিপেস্ট – সংক্ষেপে টেকটিউনসের মূল বৈশিষ্ট্য এটিই (চলুন জেনে নিই টেকটিউনসের আসল পরিচয়)

    • আপনার মত দিলদরিয়া ফ্রবাসী মানুষ না থাকলে আমার সাইট তো চলতই না 😛
      সাইট খুলার পরই অবশ্য জনপ্রিয়তা দেখে লিকবিডি এড দেওয়ার জন্য অনুরোধ করে, আপনার ফ্রবাসে বসে পাঠানো ফ্রবাসী টাকায় কাজ চললেও টু পাইস ইনকামের জন্য লিকবিডির এড অ্যাপ্রুভ করলাম 🙂

  1. স্বৈরাচারী মডারেটর সোর্ডফিশের পতন চাই। টেকটিউনসের কথিত টপটিউনার ও মডারেটরের মুখোশ খুলে দেওয়ায় আপনাকে হাজার সালাম। রার ফাইলটির জন্য অপেক্ষা করছি।

    • আশা করি কালকে দুপুরের মধ্যেই পাবেন, আমি ফ্রবাস থেকে পাঠিয়ে দিয়েছি, ত্যালার হাতে কালকে নাগাদ পৌঁছে যাবে।

    • ফ্রবাসী ফ্রবাস থেকে ফাইলটি পাঠিয়েছেন, কাল ১০ নাগাদ আমার হাতে এসে পৌঁছুবে। তখন ডাউনলোড লিঙ্ক দিয়ে দেব। মুখোশ এখনও সামান্যই খোলা হয়েছে, বাকিটুকু খুলতে আরেকটু অপেক্ষা করতে হবে। 🙂 😀

  2. পোস্ট অচাম হইচে 🙂

    ***একটা অফিশিয়াল ফেসবুক গ্রুপ খুলেন আমরা একজন আরেক জন কে কুপোকাত করবো চরি চরি উপকার করবো।

  3. OGOR DURNITI DEIKKHA LULAITE MUN CHAY. Amra LULAITO . Swordfish Re discovery channel er oi MAS DHORA PROGRAME TA DEKHAN LAGBO. EMoN LULAYOMAN POST ARO CHAI . Ogor MUKHOSH khuilla cellbazaar e bechum . Pore oi poisha dhekt. te invest korum.

  4. ইয়ে মানে এডমিন ভাই, ঢেকটিউনসে তো সকল অ্যাফিলিয়েট কাজ কাম নিষিদ্ধ (আমার ত্তডেস্ক ত্ত অনলাইন স্কুল ছাড়া), আপনি দেখলাম জাম্বোফাইলে আপলোড করেছেন। তো ওখান থেকে আমাকে যদি কিছু পার্সেন্ডেজ দিতেন … :mgreen:

  5. পোস্টটা পরে মনে হল নিজের নামে কমেন্ট করে যাই।ত্যালা বান্দর ভাইয়ের উপরে কিছুটা মনে হচ্ছে ব্যক্তিকেন্দ্রিক আক্রোশ কাজ করেছে।লাস্ট কিছুদিন র‍্যাপিডলি কমেন্ট মুছে দিয়েছে,সব পড়েও নাই মনে হয়।ব্যাপারটা ভালো লাগে নাই।লাস্টে টিটিতে স্প্যাম আর ট্র্যাশ চেক করি নাই এজন্য কিছু বিনুদুন মিস করসি 😛

    চ্যালা বান্দর ভাই চালায়া যান।আপনের সাইট আর ঐখানে সবার কমেন্টে কি সমস্যা হইসে জানি না কিন্তু মাসখানিক এ এত্ত মজা পাই নাই।গত ২ দিনে অনেক হাসছি।আমি আবার ম্যাঙ্গো পাব্লিক কিনা।আর কারিফ ভাইরে তো… বাকিটা না ই বললাম।

    অফটপিকঃটিটির চারটা স্ক্রিনশট ছিল আপনার কমেন্টের,দেখেন লাগে কিনা



    আপনার বিনুদুনের সাইটটা কিন্তু অবশ্যই চালায়া যাবেন।ঝাতি আর যাই হোক বিনুদুন চায়

  6. দ্রষ্টব্য: আমাদের এই ঢিউন দেখে টেকটিউনস মডারেটররা কমেন্ট ফিরিয়ে আনছে তাই মনে করবেন না যে কমেন্টগুলু মোছা হয় নি। আমাদের ভুল প্রমাণিত করার একটা চাল শুধু 🙂 😛

  7. আমি তো নিউমিতু টীটী তে লিখি। কই খকুনু তো দেখি নাই সোর্সফিস এরে এরখন করতে? আপনি মিয়া কি লাগাইলেন। সারাজিবন কি ত্যাল ই দিয়া যাওন লাগব আপ্নারে? গ্রিয ট্রিয অন্য কিসু চলে না? 😀 😛

  8. আমরা নিজেরাও আমাদের ওখানে এই সব নিয়ে হাসি ঠাট্টা করেছি। আমরা সকলেই প্রায় টিটি থেকে সরে এসেছি। ভয় হয় কী জানি আবার কে ভাদা -পাদা বলে দেবে। 😀

একটা কমেন্ট করে যান

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s