ঢিউন্টারভিউ: ত্যালা বান্দর, এডমিন, ঢেকটিউনস

ঢিউন্টারভিউ গেস্ট: ত্যালা বান্দর, এডমিন, ঢেকটিউনস
ঢিউন্টারভিউ হোস্ট: হারিফ নিঝামী
সময়: শনিবার, ২৮ জুলাই, ভোর ৫টা
স্থান: ত্যালাপট্টি, ত্যালাপুর।

ত্যালা বান্দর, নিজের নিক দিয়েই পরিচিত, দেশের বৃহত্তম ও সর্বাধিক জনপ্রিয় ঢেক সাইট ঢেকটিউনসের এডমিন। সচরাচর তাকে সবার সামনে দেখা না গেলেও তিনি বাংলাদেশের বৃহত্তম ঠেক প্লাটফর্মের জন্য যা করে গেছেন তা নিঃসন্দেহে প্রশংসার দাবি রাখে। তার সুতীক্ষ্ম মতামত, দিকনির্দেশনা ও মডারেশন সিলেকশনের ক্ষমতায় ঢেকটিউনস আর বহুল আলোচিত একটি সাইটে পরিণত হয়েছে। প্রতিদিন ঢেকটিউনসে ৪০০০  এর বেশী ইউনিক ভিজিটর আসে যা গুগল, ইউটিউব, খোমাবইয়ের তুলনায় কিছুই নয়। চলুন শুনি তার আত্মকথা।

ঢেকটিউনস: শুভ সকাল ত্যালা বান্দর স্যার।
ত্যালা বান্দর: আপনাকেও শুভ সকাল। তা সাত সকালে কারো বাসায় হাজির হওয়াটা বেমানান এইটা কি আপনারে কেও শিখায়নি?

ঢেকটিউনস: দুঃখিত। আচ্ছা, আপনার নাম ত্যালা বান্দর কেন? এটা বাদে তো আরো অনেক সুন্দর নাম ছিল যেমন খাতাউর রহমান, খ্রবাসী, ত্যালাউদ্দৌলা। সব বাদ দিয়ে এই বিশেষ নামটা কেন?
ত্যালা বান্দর: আসলে ঘটনাটা বেশ পুরনো। আপনি নিশ্চয়ই টেকটিউনসের নাম শুনেছেন। ওটা ছিল দেশের বৃহত্তম সোশিয়াল টেক সাইট। সাইট ছিল অসম্ভব জনপ্রিয়। কারণ বলতে পারবেন? অভ্র, পাইরেসি আর গুগল। এই তিনটি ছিল টেকটিউনসের হাতিয়ার। আর বাঙালি তো ফ্রি পাইলে কয়লাও খায়, তাই সারাদিন টেটিতে পড়ে থাকতো। তো একদিন …

ঢেকটিউনস: স্যার বলছিলাম আপনার নিক ত্যালা বান্দর কেন?
ত্যালা বান্দর: আরে সেকথাই তো বলছি। টেকটিউনসে নিয়মিত ভিজিট করলেও খুবই নিম্নমানের পোস্ট আসতো। আগের মত টপটিউনার ছিলনা। ফলে যে যার মত টিউন করতো, মডারেটরকে তেল দিলে স্টিকিও হয়ে যেত। একদিন উচিত কথা বলায় আমার নিকটা ব্যান করে দিল। সেই থেকে খুলে ফেললাম ত্যালা বান্দর। বুঝলাম যে তেলা কমেন্ট ছাড়া টেকটিউনসে থাকা সম্ভব নয়।

ঢেকটিউনস: পরবর্তী ঘটনা কি হল?
ত্যালা বান্দর: তারপরের কাহিনী তো দেখতেই পাচ্ছেন। আমি ২০০ টাকায় টেকটিউনসকে কিনে নিলাম। ম্যাশেবলের মালিক পিট ক্যাশমোরও কিনতে চেয়েছিল। তবে মডারেটরদের উনার পছন্দ হয়নি। তাই আমিই কিনলাম। আর উপায়ও ছিলনা, টেকটিউনস এমনিতেই দেউলিয়া হয়ে যাচ্ছিল।

ঢেকটিউনস: আপনার সাইটের নাম ঢেকটিউনস হল কেন?
ত্যালা বান্দর: বললাম ই তো যে টেকটিউনস আমি কিনে নিয়েছিলাম। তো একটা জিনিস কিনে ফেলার পর তো আর আগের নামই রাখা যায়না, যায়কি? তাই ভাবলাম সাইটে যেহেতু ঢেকি মনষ্ক পোলাপাইনের অভাব নাই, আর বিনুদুন হিসেবে পোস্টগুলা ভালই হিট হচ্ছে তাই ট এর টুপি কেটে ঢেকটিউনস করে দিলাম।

ঢেকটিউনস: ঢেকটিউনসের সাথে আগের টেকটিউনসের মিল, কেন?
ত্যালা বান্দর: নাম বদলেছি তাতে কি, মাল তো একই। তাই সবকিছুই এক। তবে যেহেতু মডারেশন প্যানেলে বিস্তর পরিবর্তন এসেছে, তাই ঢেকটিউনস “3.0” বের করা হয়েছে।

ঢেকটিউনস: মডারেশনে কেমন পরিবর্তন আনলেন?
ত্যালা বান্দর: সবার আগে সোর্ডফিশকে বাদ দিয়েছি। কেন জানেন? ওর কুকর্ম বলার মত না। এমনিতেই এক পেজে ৭টা অ্যাড দিয়ে টাকা রাখার জায়গা হচ্ছিলনা, সোর্ডফিশকে নিয়মিত আমি পে করতাম। তবুও তার হ্যান চাই ত্যান চাই। আর নিজের পাবলিসিটি করে সাইটের দুর্গন্ধ বের করে ফেলেছিল। নরকের কীটটাকে না সরালে হচ্ছিলনা। আর আগের সব মডারেটরকে সরিয়ে ইতালির চিপাচাপায় থাকা ফ্রবাসী, ত্যালাউর রহমান, নিজামী এদের নিয়োগ দিয়েছি।

ঢেকটিউনস: আপনি এখন ঢেকনোলজি ও ঢেকিকমিউনিকেশনসে পড়ছেন। সামনে কি কি করতে চান?
ত্যালা বান্দর: আমার তো মনে হয় একটা ঢেকি কিনলেই আমার সারাজীবন চলে যাবে। তবুও দেখা যাক কি করতে পারি। শুধু তেল দিয়েই তো জীবন চলপেনা কি বলেন?

ঢেকটিউনস: হুম ঠিক। সামান্য টিউনার থেকে ঢেকটিউনসের মালিক হয়ে গেলেন,অনুভূতিটা কেমন?
ত্যালা বান্দর: আবার ত্যানা প্যাচান ক্যান? আসলে সবার মাঝে রেভুল্যুশন ঘটানোর ক্ষমতা থাকেনা। এইযে দেখেন ঢেকটিউনসে প্রতিদিন ৪০০০ হিট, এটা কি আমি সবার পায়ে ধরে এনেছি? না, সবাই নিজেই এসেছে। ভাল উদ্দোক্তা হতে হলে মোস্তফা জব্বারের মত বিজয় বিজয় করলেই হবেনা, এমনকি সোর্ডফিশের মত সবসময় ‘ও’ কে ‘ত্ত’ লিখলেও হবেনা। বোঝা গেল?

ঢেকটিউনস: আপনার ব্যাক্তিগত …
ত্যালা বান্দর: আমারে সোর্ডফিশ পাইছেন নাকি? না আমার কুনু চিকস টিকস নাই। আমি বিবাহিত ভাল মানুষ। দুই সন্তান আর বউ নিয়া সুখেই আছি।

গত হানিমুনে ত্যালত্যালা বান্দর নেপালের কাউম্যাতুঘলকে, সাথে স্ত্রী রুপবান বান্দরনী

ঢেকটিউনস: ১০ বছর পর নিজেকে কোথায় দেখতে চান?
ত্যালা বান্দর: ভাগ্য ভাল থাকলে আমার বাসা নয়তো অফিসেই দেখতে পাবেন।

ঢেকটিউনস: আপনার প্রিয় ব্যাক্তিত্ব?
ত্যালা বান্দর: মোঃ আসিফ- উদ-দৌলাহ্। উনার মত দার্শনিক আমি বাপ জন্মে দেখিনাই। সক্রেটিস বেচে থাকলে নিশ্চয়ই হেমলক ছাড়াই হার্ট অ্যাটাক করে মারা যেতেন।

ঢেকটিউনস: প্রিয় খাবার?
ত্যালা বান্দর: আপনি মেয়ে নাকি? কি খাও, কি দিয়া খাও, কোন হাত দিয়া খাও টাইপ প্রশ্ন করেন? খাই তো সবকিছুই। তবে টুনা মাছ (সোর্ডফিশ না) পছন্দের। শুনসি এটায় নাকি ঘিলু কমে যায়। ফ্রবাসী নাকি ইঠালীতে এটাই খেত। এখন ভুনা শিয়ালের মাংস পছন্দ করি।

ঢেকটিউনস: জনপ্রিয় ঢিউনার শুভ্র বাল্কেশ সম্পর্কে কিছু বলবেন?
ত্যালা বান্দর: আরে আবার ওর কথা টানছো? আমি তো ওর কতামত দোকানে গিয়া বললাম ‘এএমডি কুর আই সেবেন’ প্রসেসর দেন। দোকানদার আমাকে কি যে দিল! বাসায় এসে দেখি ইউএসবি পোর্ট, ভিজিএ কিসুই নাই। অথচ সে কইসিল যে এই আপু না এপিইউ কিনলে নাকি ইউএসবি থ্রি আসবে, ব্রাউজার লাগবেনা, এমনিতেই এইচটিএমএল৫ কাজ করবে, এমনকি নেট স্পীডও অনেকখানি বেড়ে যাবে।  পুরাই বাঁশ খেলাম। ওকে ব্যান করার অর্ডার দিয়েছি, তবে সোর্ডফিশ করেনা, সে আবার সোর্ডফিশের বেয়াই লাগে তো!

প্রিয় পোষাপাখি “টুকু”-র সাথে ত্যালত্যালা বান্দর

ঢেকটিউনস: শেষ প্রশ্ন, আপনি ত্যালত্যালা হতে কি ব্যবহার করেন?
ত্যালা বান্দর: এটা টপ সিক্রেট। কিন্তু তুমি যেহেতু আমার ঢিউন্টারভিউ নিচ্ছ, কাজেই তোমাকে বলি। আমি বিক্ষ্যাত Oily Monkey ব্র্যান্ডের ক্রিম ব্যবহার করি। এটা টেকটিউনসের খাতাউর সাহেবও ব্যবহার করতো।

ঢেকঢিউনস: ঢেকঢিউনসকে সময় দেওয়ায় আপনাকে আন্তরিক ধন্যবাদ।
ত্যালা বান্দর: আপনাকেও ধন্যবাদ। তবে ঢিউন্টারভিউ হুশ করিয়া ছাপাইয়েন। ত্যাল ছাড়া আমি কিছু লাইক করিনা। 🙄

ঢেকঢিউনস ঢিউন্টারভিউ হয়ে উঠেছে অসম্ভব জনপ্রিয়

ঢেকঢিউনসের প্রথম ঢিউন্টারভিউ প্রকাশের সাথে সাথে তা পুরো দেশ জুরে সারা পড়েছে। কর্পোরেট, মিডিয়া ও নেটিজেন থেকে শুরু করে ঢিউজিটর সবার কাছে ঢিউন্টারভিউ অসম্ভম রকম প্রশংশিত ও সমাদিত হয়েছে। ঢিউন্টাভিউকে আরও শৃঙ্খল, সজ্জিত ও পরিকল্পিত করার জন্য অনেকেই বিভিন্ন পরামর্শ ও অভিমত দিয়েছেন। তাদের সবাইকে অসংখ্য ধন্যবাদ। ঢেকঢিউনসের এ ধরনের সৃজনশীল আয়োজনের আরও বেশ কিছু পরিকল্পনা রয়েছে এবং তা বাস্তবায়ন হবে ইনশাল্লাহ।

আর নেওয়া হচ্ছেনা ঢিউন্টারভিউ হোস্ট

ইতোমধ্যেই ঢেকঢিউনস ঢিউন্টারভিউ হোস্ট হতে আবেদন করেছেন অনেকে। কিন্তু পয়সা খেয়ে আমরা আর নতুন ঢিউন্টারভিউ হোস্ট নির্বাচিত করছিনা। সো স্যরি রিডারস!

ঢেকঢিউনসের সোসিয়াল চিপাগলিতে যুক্ত হোন। সাপোর্ট করুন আর প্রমোট করুন ঢেকঢিউনসকে

ঢেকঢিউনসের সাথে আরও নিবিড় ভাবে যুক্ত হতে এবং রিয়েলটাইম আপডেট পেতে ঢেকঢিউনসের চিপাগলিতে যুক্ত হোক এখনই। ফেসবুক, ম্যাশেবল ছেড়ে চলে আসুন আমাদের গলিতে আর হয়ে যান নাম সর্বস্ব ঢেকঢিউনার।

শুধু নিজে নয় আপনার বন্ধু-বান্ধব, পরিজন আর সবাইকে নিয়ে আসুন এই ফ্রযুক্তির বলয়ে।

Advertisements

18 thoughts on “ঢিউন্টারভিউ: ত্যালা বান্দর, এডমিন, ঢেকটিউনস

  1. ঢেকটিউনসের এডমিন সম্পর্কে আমার জানার অনেক ইচ্ছা ছিল! 😀 😀
    ত্যালাবান্দরকে অভিনন্দন এত প্রতিকূলতার মাঝে একটা লাম্বার উয়ান ঢেকি সাইট তৈরি করার জন্য 🙂 🙂 🙂

      • শুধু অ্যাডমিন দের সালাম দিলে হবে না, আমাকে সালাম দেন। এই সাইট কিন্তু আমিই ফ্রবাস থেকে টাকা পাঠিয়ে চালাই।

      • কথা ঠিক, সার্ভারের খরচের অনেকাংশ বহন করচে ফ্রবাসী। উনি ফ্রবাস থেকে আমাদের জন্য এত কিচু কর্ছেন তাতে আমরা সত্যিই অবিবূত। 🙂

  2. এরা কে ? এদের তো কেউ চেনে না, আমি হলাম বাংলার শ্রেষ্ঠ ঢেঁকি, সুতরাং আমার ঢিউন্টারভিউ আগে নেয়া উচিৎ ছিল। :@

  3. এই আবালগুলা কে ! আমি এতো বড় হেডা ! আমার ইন্টারবউ থুক্কু ইন্টারভিউ লয় না কেন ? জানাস আমার সর্ণ ব্যবসায় কত নাম ?

  4. আমি মালপানি ছাড়া ঢিউন্টারভিউ দেই না। মালপানি লইয়া পদ্মাসেতুর নিচে আসেন। ঢিউন্টারভিউ দিমু। আবুল মামুও আছে লগে।

    • লুলু, তোমার কয় ঝুড়ি মালপানি লাগবে বোলো, আমি ফ্রবাস থেকে খুরিয়ারে করে পদ্মা সেতুর নিচে ফাঠিয়ে দিচ্ছি, তবে ঢিউন্টারভিউ দেওয়া লাগবে না, ঢিউন্টারভিউ দেওয়ার লোক লাইনে জায়গা হচ্ছে না।

একটা কমেন্ট করে যান

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s